হযরতওয়ালা দা.বা. এর সমস্ত কিতাব, বয়ান, প্রবন্ধ, মালফুযাত পেতে   ইসলামী যিন্দেগী  App টি এবং থেকে সংগ্রহ করুন।

www.darsemansoor.org এখন www.darsemansoor.comপরিবর্তিত হয়েছে।

হযরতওয়ালা দা.বা. কর্তৃক সংকলিত চিরস্থায়ী ক্যালেন্ডার ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন

জামি‘আ রাহমানিয়া আরাবিয়া মাদরাসা থেকে প্রকাশিত একাডেমিক ক্যালেন্ডার পেতে ক্লিক করুন

www.darsemansoor.org এখন www.darsemansoor.com

হযরতওয়ালা শাইখুল হাদীস মুফতী মনসূরুল হক দা.বা. এর বয়ান এবং সমস্ত কিতাব, প্রবন্ধ, মালফুযাত একসাথে ১টি অ্যাপে পেতে ইসলামী যিন্দেগী অ্যাপটি আপনার মোবাইলে ইন্সটল করুন। Play Storeএবং  App Store

১। হযরত আবূ হুরাইরা রাযি. বর্ণনা করেন: মহানবী সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম ইরশাদ করেন: নারী যদি সময় মত পাঁচ ওয়াক্ত নামায আদায় করে, রমযান মাসে রোযা রাখে, সতীত্ব রক্ষা করে এবং স্বামীর আনুগত্য করে তাহলে (কিয়ামতের দিন) সে জান্নাতের (আট দরজার) যে কোন দরজা দিয়ে প্রবেশ করতে পারবে। (সহীহ ইবনে হিব্বান- হাদীস নং ৪১৩৯)

২। হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে মাসউদ রাযি. বলেন, একবার মহানবী সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম নারীদেরকে সম্বোধন করে ইরশাদ করেন, তোমরা বেশী বেশী দান খায়রাত করো। যদিও তোমাদের অলংকারাদি থেকে হয়। কারণ কিয়ামতের দিন জাহান্নামীদের মধ্যে নারীদের সংখ্যাই বেশী হবে। একথা শুনে জনৈকা মহিলা জিজ্ঞাসা করলেন, মহিলাদের সংখ্যা বেশী হওয়ার কারণ কীঃ জবাবে মহানবী সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম বললেন, কারণ (কথায় কথায়) তোমরা অভিশাপ দাও এবং স্বামীর অবাধ্য হও। (মুসনাদে আহমদ হাঃ নং ৪০৩৬)

১. জরুরী আকায়িদ, ইবাদত, সহীহ কুরআন তিলাওয়াত, পিতা-মাতা, স্বামীর হক ও সন্তানের হক সম্পর্কে ইলম হাসিল করে না অথচ জরুরত পরিমাণ ইলম অর্জন করা ফরয। অনেক পিতা-মাতাও এ ব্যাপারে উদাসীন। কিছু দুনিয়াবী ইলম শিক্ষা দেওয়াকে যথেষ্ট মনে করে। (সুনানে ইবনে মাজাহ ,হাদীস নং ২২৪)

২. সময়ের পাবন্দি করে না। নামায-ইবাদত, খানা, গোসল ইত্যাদি সকল কাজে তারা দেরি করে; এতে সংশ্লিষ্ট লোকেরা পেরেশান হয়ে যায় এবং অনেক জরুরী কাজ নষ্ট হয়ে যায়। (সহীহ বুখারী, হাদীস নং ৬৪১২)

৩. দুই তিন জন একত্রিত হলে অন্যের দোষ চর্চায় লিপ্ত হয়। অথচ অন্যের দোষ চর্চা করা কবীরা গুনাহ। আল্লাহ তা‘আলা ইরশাদ করেন, “(হে মুমিনগণ!) তোমরা কারো দোষ অনুসন্ধান, করো না। আর একে অন্যের গীবত (অগোচরে দুর্নাম) করো না; তোমাদের কেউ কী স্বীয় মৃত ভাইয়ের গোশত খেতে পছন্দ করবে? এটা তো তোমরা অবশ্যই ঘৃণা করে থাকো! আর আল্লাহ কে ভয় করো, নিঃসন্দেহে আল্লাহ বড় তাওবা কবূলকারী, দয়ালু”। (সূরায়ে হুজুরাতঃ ১২)

আল্লাহ তা‘আলা ইরশাদ করেন: (তরজমা) নারী পুরুষের যে কেউ ঈমান অবস্থায় নেক আমল করবে আমি অবশ্যই তাকে শান্তিময় জীবন দান করব, এবং আখেরাতে তার কৃতকর্মের উত্তম প্রতিদান দিবো। (সূরা নাহল-৯৭)

আলোচ্য আয়াতে আল্লাহ তা‘আলা দুনিয়ার উত্তম জীবন এবং পরকালের উত্তম প্রতিদান দেয়ার ব্যাপারে যেমন পুরুষদের সাথে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ, তদ্রূপ মহিলাদের সাথেও অঙ্গীকারবদ্ধ। এক্ষেত্রে নারী পুরুষের কোন পার্থক্য করেননি। তবে শর্ত হল, প্রত্যেকের নিজ নিজ দায়িত্ব পালনে যত্নবান হতে হবে। সুতরাং মহিলারাও যদি ঈমানকে পরিশুদ্ধ করে নেককাজ তথা ইবাদাত-বন্দেগী, স্বামীর খেদমত ও তার আমানতের হেফাযত এবং সন্তান লালন-পালন করে তাহলে একদিকে যেমন তারা দুনিয়াতে উত্তম জীবন প্রাপ্ত হবে, সুখময় দাম্পত্য জীবনের অধিকারী হবে এবং আত্মার প্রশান্তি লাভ করবে, অপরদিকে আখেরাতেও তারা উত্তম প্রতিদান পাবে, চির সুখ-শান্তিসমৃদ্ধ জান্নাত লাভ করবে এবং অভাবনীয়, অকল্পনীয় ও অপূর্ব নেয়ামত ভোগ করবে।

ক. হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে মাসউদ رضي الله عنهم এর সূত্রে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম  ইরশাদ করেছেন, মহিলার জন্য নির্ধারিত হুজরায় নামায অপেক্ষা তার  ঘরে নামায পড়া উত্তম, আর ঘরে নামায অপেক্ষা নিভৃত ও একান্ত কোঠায় নামায পড়া উত্তম। (সুনানে আবু দাউদ, হাদীস নং ৫৭০)

খ. একদা হযরত উম্মে হুমাইদ رضي الله عنهم রাসূল صلى اللهعليه وسلم এর দরবারে এসে বললেন, ইয়া রাসূলুল্লাহ! আমি আপনার সঙ্গে নামায পড়তে ভালবাসি। রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেন, আমি জানি তুমি আমার সঙ্গে নামায পড়তে ভালবাসো কিন্তু, তোমার ঘরে নামায তোমার বাইরের হুজরায় নামায অপেক্ষা উত্তম। আর তোমার হুজরায় নামায তোমার বাড়ীতে নামায অপেক্ষা উত্তম। আর তোমার বাড়ীতে নামায তোমার মহল্লার মসজিদে নামায অপেক্ষা উত্তম । আর তোমার মহল্লার মসজিদে নামায আমার মসজিদে নামায অপেক্ষা উত্তম। অত:পর উক্ত মহিলা নিজ ঘরের অন্ধকার প্রকোষ্ঠে নামাযের স্থান নির্ধারণ করিয়ে নিলো এবং আমরণ তাতেই নামায আদায় করল। মুসনাদে আহমাদ, সহীহ ইবনে খুযাইমা ও সহীহ ইবনে হিব্বান, সূত্র “তারগীব-তারহীব”হাদীস নং ৫১৩

আল্লাহ রব্বুল আলামীন মহিলাদের জন্য জান্নাতের আটটি দরজা খুলে দিবেন এবং যে কোন দরজা দিয়ে সে চাইবে জান্নাতে প্রবেশ করতে পারবে যদি সে আটটি কাজ করে ১.ঈমান শিক্ষা করা, ২.ইবাদাত সুন্নত তরীকায় করা, ৩.স্বামীর খেদমত করা, ৪.স্বামীর বৈধ হুকুম মানা, ৫.স্বামীর মালের হেফাজত করা, ৬.নিজেকে পর্দায় রাখা, ৭.সন্তানকে দীন শিক্ষা দেয়া, ৮.মহিলা মহলে দাওয়াত দেয়া।

তারিখ বিষয় শুনুন ডাউনলোড বিবরণ সময় সাইজ
০৯-১২-২০১৭ দীনের জরুরী বিষয়     ০১:৪৪:৩৮
ডাউনলোড  ১১.৯ MB জামিউল উলূম মাদরাসা, মিরপুর, ঢাকা।
০৮-১২-২০১৭ জাহান্নামের আযাব     ৩৫:৪৬
ডাউনলোড  ৪.০৯ MB খিলগাও বাজার জামে মসজিদ, ঢাকা।
০৮-১২-২০১৭ ফরযে আইন ইলম     ০২:০৬:০৭
ডাউনলোড  ১৪.৪ MB নবাবগঞ্জ।
০১-১২-২০১৭ জান্নাতের নি‘আমত-০২     ৩০:২১
ডাউনলোড  ৩.৪৭ MB খিলগাও বাজার জামে মসজিদ, ঢাকা।
০১-১২-২০১৭ শরী‘আতের সারমর্ম (৬বিষয়ের) ইলম অর্জন     ০১:৪২:২৫
ডাউনলোড  ১১.৭ MB বাইতুর রহমান জামে মসজিদ, সাভার।

আরো দেখুন