ইনশাআল্লাহ জামি‘আ ইসলামিয়া দারুল উলুম মাদানিয়া যাত্রাবাড়ী মাদরাসায় বার্ষিক দাওয়াতুল হকের মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে আগামী  ২৭শে নভেম্বর, ২০২১ ঈসায়ী, শনিবার।

হযরতওয়ালা মুফতী মনসূরুল হক সাহেব দা.বা এর লিখিত সকল কিতাব পাওয়ার জন্য ক্লিক করুন

হযরতওয়ালা দা.বা. এর কিতাব অনলাইনের মাধ্যমে কিনতে চাইলে ভিজিট করুনঃ www.maktabatunnoor.com

জামি‘আ রাহমানিয়া আরাবিয়া মাদরাসা থেকে প্রকাশিত একাডেমিক ক্যালেন্ডার পেতে ক্লিক করুন

হযরতওয়ালা দা.বা. কর্তৃক সংকলিত চিরস্থায়ী ক্যালেন্ডার ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন

হযরতওয়ালা শাইখুল হাদীস মুফতী মনসূরুল হক দা.বা. এর বয়ান এবং সমস্ত কিতাব, প্রবন্ধ, মালফুযাত একসাথে ১টি অ্যাপে পেতে ইসলামী যিন্দেগী অ্যাপটি আপনার মোবাইলে ইন্সটল করুন। Play Storeএবং  App Store
 

প্রথম কথা

মুফতী মনসূরুল হক দামাত বারাকাতুহুম

হামদ ও সালাতের পর…

সাধারণ ধারণায় গল্প ও কেচ্ছা-কাহিনী নিছক অবসর কাটানো ও হালকা বিনোদন-সামগ্রী হিসেবে বিবেচিত। সাধারণ গল্প-কাহিনীগুলো যারা গড়েন ও পড়েন এই দৃষ্টিকোণ থেকেই গড়ে-পড়ে থাকেন। ইতিহাস ও সত্যাশ্রয়ী গল্প-কাহিনীগুলো কিন্তু তেমন নয়। এর কিছু তো সূত্রসমৃদ্ধ নিখাঁদ সত্য আর কিছু সূত্রহীন হলেও পরম বাস্তব। কঠিন বিষয়কে সহজ ও স্মরণীয় করতে এবং সুকঠিন সত্যকে গ্রহণযোগ্য ও বরণীয় করতে এসব গল্পের জুড়ি নেই। অনেক সময় ঘণ্টা-দু’ঘণ্টার জ্ঞানগর্ভ আলোচনাও পাঁচ মিনিটের গল্পে হৃদয়ঙ্গম করানো যায়। গল্প তখন গল্প থাকে না; হয়ে ওঠে মস্তবড় হাতিয়ার।

গল্প-কাহিনীর প্রতি মানুষের স্বভাবজাত ঝোঁক এবং এর বাস্তব উপকার বিবেচনায় নিকট ও দূর অতীতের প্রায় সকল দীনী মুরুব্বী তাদের লেখনী ও বয়ানে গল্পের ব্যবহার করেছেন। কোন কোন মুরুব্বীর তো পছন্দনীয় গল্পের পৃথক সংকলনই বিদ্যমান। মুরুব্বীগণের নগণ্য অনুকারী হওয়ায় আমিও এর বাইরে নই। প্রায় চল্লিশ বছরের শিক্ষকতা ও দীনী খিদমতের সুবাদে ওয়াজ-নসীহত ও দরস-তাদরীসে আলোচ্য বিষয়কে স্পষ্ট ও সকলের নিকট বোধগম্য করার জন্যে প্রচুর গল্প-কাহিনী বলা হয়েছে। এগুলোর বেশিরভাগই বড়দের থেকে শ্রুত কিংবা তাদের কিতাব থেকে আহরিত।

বড়দের মত আমিও কামনা করি, আমার সকল দীনী খিদমত সংরক্ষিত হোক। উদ্দেশ্য, তাঁদের থেকে আহরিত ইলম ও হিকমত এবং জ্ঞান ও প্রজ্ঞা কালের গর্ভে হারিয়ে না যাক; লিখিতভাবে সংরক্ষিত হোক। সে কারণে আমার দীর্ঘ দিনের তামান্না ছিলো, আমার বলা শিক্ষণীয় গল্পগুলোও কেউ সংরক্ষণ করার উদ্যোগ গ্রহণ করুক।

প্রিয় শাগরিদ মাওলানা ইরফান জিয়া যে বছর মিশকাত জামা‘আতে পড়ে; ওদের দরসে আমি আমার এ তামান্নার কথা ব্যক্ত করেছিলাম। আল্লাহর শোকর বিষয়টি সে গুরুত্বের সঙ্গে নিয়েছে। বিভিন্ন সময়ে বয়ান ও দরসে বলা গল্পগুলো ওর ভাষায় বিন্যস্ত করেছে। আমার লেখা কিতাবাদি এবং বিগত সময়ের ছাত্রদের থেকেও বেশ কিছু সংগ্রহ করেছে। তারপর কম্পোজ করে, সূত্র উদ্ধৃত করে আমার কাছে পেশ করেছে। বইটির অনেকস্থানে আমি দেখেছি এবং প্রয়োজনীয় সংশোধন করে দিয়েছি।

দীনী কথামালার সহজ-সরল উপস্থাপনাই আমার পছন্দ। এক্ষেত্রে ভাষা-সাহিত্যের অনর্থক বাগাড়ম্বর আমার মতে উপকারী নয়। সে হিসেবে গল্পগুলোর উপস্থাপনা ভাল লেগেছে। প্রাথমিক কাজ হিসেবে গল্পের পরিমাণও সন্তোষজনক। আমার পুরনো ছাত্রদের থেকে আরো ব্যাপকভাবে সংগ্রহের উদ্যোগ নিলে আশা করি বিষয়-বৈচিত্রে ও কলেবরে বইটি আরও সমৃদ্ধ হবে।

জীবনের এই পড়ন্ত বেলায় ছাত্রদের যে কোন দীনী উদ্যোগ আমাকে যারপরনাই আনন্দিত করে। দু‘আ করি, আল্লাহ তা‘আলা বইটিকে পাঠকের জন্যে উপকারী করুন এবং মাওলানা ইরফান জিয়াকে ইলম ও আমলে এবং লেখনীর খিদমতে আরও তারাক্কী দান করুন। আমীন, ইয়া রাব্বাল আলামীন।

মনসূরুল হক

খলীফা, হযরতওয়ালা শাহ আবরারুল হক রহ.

প্রধান মুফতী, জামি‘আ রাহমানিয়া আরাবিয়া

নায়েবে আমীর, মজলিসে দা’ওয়াতুল হক, বাংলাদেশ

লেখা বড় করুন লেখা ছোট করুন